বিশ্বের বিভিন্ন দেশ ক্রিকেট খেলায় অংশগ্রহন করে থাকে। বিশ্বের জনপ্রিয় খেলার মধ্য ক্রিকেট একটি অন্যতম খেলা। এশীয়া মহাদেশ গুলোতেও ব্যাপক জনপ্রিয় এই খেলা। ভারত ক্রিকেট বিশ্বের প্রথম সারির একটি দল। বিশ্বের ক্রিকেট অঙ্গনে ভারত পেয়েছে অনেক সফলতা ও সম্মাননা। ভারত ঘরোয়া পরিবেশে ক্রিকেট খেলার আয়োজন করে থাকে। এই ঘরোয়া খেলাকে আইপিএল বলা হয়ে থাকে। এই খেলায় বিশ্বের বিভিন্ন দেশের স্বনাম ধন্য অনেক খেলোওয়ার অংশগ্রহন করে থাকে।
একসময় আইপিএল মঞ্চে তার তাণ্ডব দেখতে মুখিয়ে থাকতেন সবাই। ক্রিকেটেরে সংক্ষিপ্ত সংস্করণে ওর বিধ্বংসী ব্যাটিং ভয় পেতেন না, বিশ্বে এমন বোলার খুঁজে পাওয়া মুশকিল ছিল। সেই হার্ডহিটার ইউসুফ পাঠান এখন ভারতীয় ক্রিকেটে ব্রাত্য। জাতীয় দল থেকে বাদ পড়েছেন অনেক আগেই। এবার আইপিএল থেকেও নির্বাসনে গেলেন তিনি।

টুর্নামেন্টের ২০২০ সংস্করণে দলই পেলেন না ইউসুফ। ঘটনায় ব্যথিত তার ছোট ভাই তথা ভারতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক বাঁহাতি পেসার ইরফান পাঠান। অবিক্রিত বড় ভাইকে আবেগঘন বার্তা পাঠিয়েছেন তিনি। রাজস্থান রয়্যালসের হাত ধরে আইপিএলে যাত্রা করেন ইউসুফ। টুর্নামেন্টের প্রথম সংস্করণ জেতে দলটিই। সেবার তার ব্যাট থেকে আসে ৪৩৫ রান। ওই আইপিএলে ৮টি উইকেটও নেন তিনি।

২০১৪ সালে কলকাতা নাইট রাইডার্সের জার্সিতে মাত্র ১৫ বলে অর্ধশত রান করেন ইউসুফ। যেটি আইপিএল ইতিহাসে দ্বিতীয় দ্রুততম ফিফটির রেকর্ড। টুর্নামেন্টের শেষ দুই সংস্করণে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের হয়ে খেলেন তিনি। এমন প্রতিভাধর ক্রিকেটার আসন্ন আইপিএলের নিলামে অবিক্রিত থাকায় অবাকই হয়েছেন ইরফান।আগামী বছরের আইপিএল থেকে ছিটকে পড়ার পর ভাই ইউসুফের প্রতি নিজের ভালোবাসা জানিয়েছেন তিনি।

টুইটারে ইরফান লিখেছেন, সামান্য ব্যর্থতা আপনার বর্ণময় ক্যারিয়ারকে বাখ্যা করতে পারে না। দীর্ঘ ক্যারিয়ারে দুর্দান্ত ক্রিকেট খেলেছেন আপনি। আপনি সত্যিকারের একজন ম্যাচ উইনার। সবসময় আপনাকে ভালোবাসি দাদা। সর্বাত্মক শুভকামনা রইল। মুহূর্তেই ভারতের সাবেক সুইং মাস্টারের এ বার্তা ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।

ইউসুফ পাঠান এবং ইরফান পাঠান দুই ভাই। তারা ভারতীয় দলের হয়ে ক্রিকেট খেলে থাকেন। তারা দুজনেই ভারতী ক্রিকেট দলের হয়ে অনেক আর্ন্তজার্তিক ম্যাচে অংগ্রহন করেছেন। তারা দুজনেই পেয়েছেন অনেক সফলতা ও সম্মাননা। পেয়েছেন অনেক দর্শক জনপ্রিয়তা। ২০০৩ সালে ইরফান পাঠান আন্তর্জাতিকে ভাবে ক্রিকেট অঙ্গনে আত্মপ্রকাশ করেন। এবং ইউসুফ পাঠানের অভিষেক হয় পাকিস্তানের বিরুদ্ধে টোয়েন্টি ২০ ম্যাচে অংগ্রহন এর মধ্য দিয়ে। ক্রিকেট অঙ্গনে তারা দুই ভাই পেয়েছে ব্যাপক সফলতা।