গবেষক, কলাম লেখক ও সাংবাদিক আফসান চৌধুরী। বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক সাহিত্যে অবদানের জন্য তিনি ২০১৮ সালে বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার লাভ করেন। বর্তমান সময়ে দেশ ব্যাপী ক্যাসিনো নিয়ে চলছে আলোচনা সমালোচনা। সরকারদলীয় দলে থেকে কিছু লোক এই কার্য পরিচলনা করছে। এরই ভিত্তিতে আফসান চৌধুরী বলেন, পুলিশ জানে না এমন কোনো বিষয় নেই। পুলিশ সব কিছুই দেখে, সব কিছুই জানে। আমি যা দেখতে পাই পুলিশ কি তা দেখতে পায় না? আমি ৬৭ বছর ধরে ঢাকা শহরে জুয়া খেলা দেখছি আর পুলিশ এটা দেখছে না বিষয়টা এমন নয়। পুলিশ দেখছে, কিন্তু ব্যবস্থা নিতে পারছে না। ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক নেতাদের চাপের মুখে পুলিশ কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করতে পারে না। সবগুলো জুয়ার আসরের সঙ্গে প্রভাবশালী নেতারা জড়িয়ে আছে।
এক প্রশ্নের জবাবে আফসান চৌধুরী বলেন, রাজনৈতিক চাপের মুখে পুলিশ যেহেতু জুয়া বন্ধ করতে পারে না। কোনো পদক্ষেপ নিতে গেলেই হুমকি-ধমকি আসে। আর চুপ করে থাকলে বরং জুয়ার টাকার ভাগ পাওয়া যায় তখন পুলিশ চুপ করেই থাকে। এখানে একতরফাভাবে পুলিশের উপর দোষ চাপানো ঠিক হবে না। কেননা রাজনৈতিক সদিচ্ছা ছাড়া পুলিশ বড় কোনো পদক্ষেপ নিতে পারে না। এগুলো নির্ভর করে সরকারের ইচ্ছার উপর। উল্লেখ্য, ২০১৭ সালে সাবেক সেনা কর্মকর্তা মাসুদ উদ্দিন চৌধুরী আফসান চৌধুরীর বিরুদ্ধে তথ্যপ্রযুক্তি আইনে মামলা করেন। পরবর্তীতে তিনি জামিনে মুক্তি পান। এছাড়ও একই বছর, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে করা একটি মন্তব্যের জন্য তাকে উকিল নোটিশ পাঠানো হয়।