সরকার ২০২০ সালে মুজিব বর্ষ রাষ্ট্রীয়ভাবে পালনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিষয়টিকে কিভাবে দেখছেন বিএনপির একমাত্র নারী সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা। বললেন দেখুন, এটা নিয়ে কথা বলতে গেলে আমি আইনের ধারার প্যাঁচে পরবো এবং আমার নামে মামলা হবে। মুশকিল হচ্ছে এখন আইন আদালত সবকিছু দিয়ে আমরা মানতে বাধ্য করি। এখন মানতে বাধ্য করা, তা মন থেকে মানছেন? না আইনের ভয়ে মানছেন, এ প্রশ্ন তো কেউ করছে না। বাধ্য করা হচ্ছে। একটা ফ্যাসিস্ট সরকার তাই করে। আর জনগণের টাকা তো হরিলুট চলছে এ আর নতুন কি!
শনিবার এক প্রতিক্রিয়া বিএনপির এই নেত্রী একথা বলেন। তিনি বলেন, এই যে ব্যাংকে ১ লক্ষ ৩০ হাজার কোটি টাকা মন্দ ঋণ। এই যে ১০ বছরে সাড়ে ৮ লক্ষ কোটি টাকা পাচার হয়ে গেলো। কেন্দ্রীয় ব্যাংক লোপাট হয়েছে। শেয়ার বাজার খালি করে দিয়ে ২৮ লক্ষ বিনিয়োগকারী আজকে পথে বসেছে। ব্যাংকগুলোকে একটা ব্যক্তি এবং পরিবারের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে। ব্যাংক কোম্পানি আইন পরিবর্তন হয়েছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের ক্ষমতা শূন্য করে আনা হয়েছে। অর্থ মন্ত্রণালয় মধ্যে একটা ব্যাংকিং সেক্টর বলে আলাদা আরেকটা অধিদপ্তর খোলা হয়েছে। এগুলো তো সবই জনগণের টাকা লুট করবার পাঁয়তারা।

রুমিন ফারহানা বলেন, এই যে মেগা প্রকল্পের নামে মেগা দুর্নীতি হচ্ছে। আপনি যদি দেখেন রেলপথ তৈরি করা, সড়ক পথ তৈরি, ব্রিজ, ফ্লাইওভার তৈরি করতে মেট্রোরেল তৈরি করতে যে খরচ পরে বাংলাদেশে। তার সঙ্গে যদি চীন ভারত বা ইউরোপের দেশগুলোর তুলনা করেন। আপনি দেখবেন বাংলাদেশে কয়েক শো গুণ বেশি টাকা খরচ হয়। সুতরাং এখানে তো জনগণের টাকা হরিলুট চলছে আর এটা নতুন কি! এক বছরে আর কি লুট তারা করবে? সবই তো জনগণের টাকা।

সূত্র:amadershomoy