বিশ্বের মধ্যে দুবাই স্বর্ণের স্বর্গরাজ্য হিসেবে পরিচিত। যেকোন শপিং-এর জন্য যারা দুবাইয়ে আসেন তাদের বাজারের তালিকায় ‘স্বর্ণ’ থাকবেই থাকবে। তবে দুবাই এখন শুধু সোনা কেনার জন্য সোনা গলানোর জন্যও সুপরিচিত হয়ে উঠছে শহরটি। বিশ্বের জনগণ এখন তাদের পুরানো গহনা গলিয়ে নতুন বানানোর ক্ষেত্রেও দুবাইয়ে চলে আসছেন।
দুবাই বিমান বন্দরে নাইজেরিয়ায় যাওয়ার জন্য উগোচি তার পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে অপেক্ষা করছিলেন। কথা বলে জানা গেল পুরানা সোনার গহনা নতুন ডিজাইনে বানিয়ে নিতেই এখানে এসেছেন তারা। বিবিসিকে তিনি বলেন, ‘সোনার এই হারগুলো আমার কাছে খুবই প্রিয়, আমার মেয়ের জন্যও একটি নিয়েছি আমি। আমার পরিবারের কাছে সোনা হলো এক ধরণের সম্পত্তির মত, আমি বড় হয়েছি সোনা নিয়েই, এজন্যই সোনা আমি খুব ভালবাসি।’
নাইজেরিয়ার এই পরিবারের মত অনেকেই সোনা পছন্দ করেন তাতে কোন সন্দেহ করেন কিš‘ সোনা কিনতে বা গলাতে এই দুবাই শহরই কেন? এ প্রশ্নের উত্তরের অনেকাংশে পাওয়া গেল উগোচির উত্তরে। তিনি বলেন, ‘নাইজেরিয়াতে পুরানো সোনা ভেঙ্গে নতুন ডিজাইনের গহণা বানাতে অনেক খরচ পড়ে এবং সেখানে দক্ষ কারিগড়ও নেই, কিš‘ দুবাইয়ে মাত্র দু’দিনের মধ্যেই যেকোন ডিজাইনের গহনা বানিয়ে দিতে পারে এবং খুব সাশ্রয়ী দামে।’
দক্ষ কারিগড় ও রকমারি ডিজাইনের গহনা দুবাইকে বিশ্বের মধ্যে পরিচিত করে তুলেছে তবে স্বর্ন বাজারের কমার্সিয়াল হাব (ব্যবসায়িক পথ) হিসেবে দুবাইকে গড়ে তোলার জন্য মানসম্মত স্বর্ণের প্রচুর যোগানও ইতিবাচক ভূমিকা রেখেছে। এক রিপোর্টে বলা হয় বিশ্বের প্রায় ৪০ শতাংশ স্বর্ণ লেনদেন হয় দুবাই থেকে।