মানুষের মস্তিষ্ক শুধু জটিলই নয়। বিকৃতও। এতটাই যে পাশের বাড়ির দরজা ভেঙে পোষ্যকে ধর্ষণ করতেও বাধে না। তা-ও প্রকাশ্যেই।
দিন চারেক আগে আমেরিকায় ঘটে যাওয়া এই ঘটনা নাড়া দিয়েছে সকলকেই। পোষ্য কুকুরটি তো বটেই, চোখের সামনে এই ঘটনা দেখে হতবাক বাড়ির একরত্তি মেয়েটিও।
৪৪ বছরের ড্যানিয়েল রেইনসভল্ড নামে ওই ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
পোষ্য কুকুরটি ড্যানিয়েলের সহকর্মীর। সহকর্মী অফিস বেরিয়ে যাওয়ার পর ড্যানিয়েল বাড়ির দরজা ভেঙে ভিতরে ঢোকে। তখন বাড়িতে শুধু সহকর্মীর মেয়ে ছিল। পরিচিত মুখ হওয়ায় কুকুরটিও খুব সহজেই ড্যানিয়েলের ডাকে সাড়া দেয়। সেই সুযোগেই ধর্ষণ করে কুপার নামে পোষ্যটিকে।
এই ঘটনাটি চোখের সামনে দেখে বাচ্চা মেয়েটি। পুলিশকে সে জানায়, কুপারের গোঙানি শুনে সে নীচে নেমে আসে। বেসমেন্টে কুপারকে খুব শক্ত করে ধরে দাঁড়িয়েছিলেন ড্যানিয়েল। তিনি অর্ধনগ্ন ছিলেন। শিশুটিকে ঢুকতে দেখে কিছুটা চমকে যায় ড্যানিয়েল। সেই সুযোগে কুপার ছুটে ঘরে ঢুকে যায়। ঘটনার কিছু ক্ষণ পরেই অবশ্য গ্রেফতার করা হয় কুপারকে।
এই ঘটনার সপ্তাহখানেক আগে এর থেকেও ভয়াবহ ঘটনা ঘটেছিল। প্রকাশ্যেই পার্কে খেলে বেড়ানো একটি কুকুরকে ধর্ষণের চেষ্টা করেছিলেন জেসাস সানচেক নামে এক ব্যক্তি। তাতে অবশ্য হাতে নাতেই সাজা পেয়েছিলেন তিনি। এক কামড়ে তাঁর যৌনাঙ্গ ছিঁড়ে নিয়েছিল কুকুরটি। সুত্র-আনন্দবাজার