জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী রুমানা মোর্শেদ কনকচাঁপা (পরিচিত নাম কনকচাঁপা)।যার গান এখনো কোটি শ্রোতার মুখে মুখে। কনক চাঁপার বাবার নাম আজিজুল হক মোর্শেদ। পাঁচ ভাই বোনের মধ্যে কনক চাঁপা তৃতীয়। অসংখ্য জনপ্রিয় গান উপহার দিয়ে তিনি বাংলা গানের ভাণ্ডারকে সমৃদ্ধ করেছেন। চলচ্চিত্র, আধুনিক গান, নজরুল সঙ্গীত, লোকগীতি সহ প্রায় সবধরনের গানে কনক চাঁপা সমান পারদর্শী। তিনি ৩২ বছর ধরে সংগীতাঙ্গনে কাজ করে যাচ্ছেন। এই পর্যন্ত চলচ্চিত্রের তিন হাজারেরও বেশি গানে কণ্ঠ দিয়েছেন কনক চাঁপা। প্রকাশিত হয়েছে ৩৫টি একক গানের অ্যালবাম। অসংখ্য গান গেয়ে মানুষের মন জয় করে আছেন তিনি। আজ ১১ সেপ্টেম্বর প্রথিতযশা এই কণ্ঠশিল্পীর জন্মদিন। ১৯৬৯ সালের এই দিনে জন্মগ্রহণ করেন তিনি। এই শিল্পীর এবারের জন্মদিনটা বিশেষ। কারণ এবার পঞ্চাশ বছর বয়সে পা রাখলেন কনক চাঁপা।
রাত ১২টার পর থেকেই জন্মদিনে শুভেচ্ছায় ভাসছেন কনক চাঁপা। ভক্তরা জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানাচ্ছেন তাকে। সাধারণত জন্মদিন নিয়ে তেমন উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন না তিনি। তবে এবারের জন্মদিন প্রসঙ্গে কনক চাঁপা বলেন, জন্মদিন নিয়ে কখনই আমি এক্সাইটেড থাকি না। কারণ জন্মদিন সত্যিকার অর্থে মৃত্যুর কথা মনে করিয়ে দেয়। প্রতিটা বছর পার করি আর মনে হয় ধীরে ধীরে মৃত্যুর দিকে আগাচ্ছি। পৃথিবীকে আমি অনেক ভালোবাসি। কিন্তু এবারের জন্মদিনটা আমার কাছে বিশেষ। কারণ এই বছর আমি পঞ্চাশ তম জন্মদিন পালন করছি। নিজেকে ভীষণ সোভাগ্যবান মনে হচ্ছে। পৃথিবীতে আমি অর্ধশত বছর বাস করেছি। আর কতদিন বাঁচবো এটা আল্লাহই জানেন। কনক চাঁপা আরো জানালেন, তার এই বিশেষ জন্মদিনটা কাটছে আমেরিকায়। তিনি বলেন, আজকে আমার মা, সন্তান, নাতি নাতনিরা অনেক দূরে। আমার ভাগ্নি অ্যানির সঙ্গে কাটছে দিনটা। ভাগ্নি জামাই শাহেদ একটা কেক নিয়ে এসে হঠাৎ করে আমাকে চমকে দিলো। দেশে বিদেশে অনেক বাংলাভাষা ভাষিরা আমার গান ভালো বাসেন। সবাই আমার জন্য দোয়া করছেন আমি যেনো কোনো ভুল কাজ না করি, আপনাদের মনে যেনো কষ্ট না দেই।

গানের পাশাপাশি লেখক হিসেবেও কনকচাঁপার সুখ্যাতি রয়েছে। ২০১০ সালের অমর একুশে বইমেলায় ’স্থবির যাযাবর’ ২০১২ সালের অমর একুশে বইমেলায় ’মুখোমুখি যোদ্ধা’ ও ২০১৬ সালের অমর একুশে বইমেলায় ’মেঘের ডানায় চড়ে’ নামে তিনটি বই প্রকাশিত হয়েছে কনক চাঁপার। তার জনপ্রিয় গানের মধ্যে রয়েছে, অনেক সাধনার পরে আমি পেলাম তোমার মন, তোমাকে চাই শুধু তোমাকে চাই, ভাল আছি ভাল থেকো, যে প্রেম স্বর্গ থেকে এসে জীবনে অমর হয়ে রয় (খালিদ হাসান মিলুর সাথে), আমার নাকেরই ফুল বলে রে তুমি যে আমার, তোমায় দেখলে মনে হয়, আকাশ ছুঁয়েছে মাটিকে, অনন্ত প্রেম তুমি দাও আমাকে, তুমি আমার এমনই একজনসহ অনেক গান। গানের জন্য রুমানা মোর্শেদ কনক চাঁপা ৩ বার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছেন। এছাড়া তিনি বাচসাস চলচ্চিত্র পুরস্কার, দর্শক ফোরাম পুরস্কার, প্রযোজক সমিতি পুরস্কারসহ আরও অসংখ্য পুরস্কার পেয়েছেন। উল্লেখ্য, কনকচাঁপা বাংলাদেশের একজন বিখ্যাত কন্ঠশীল্পি বশীর আহমেদের ছাত্রী। দীর্ঘদিন তাঁর কাছে উচ্চাঙ্গ, নজরুল সঙ্গীতসহ অন্যান্য ভারতীয় সঙ্গীতের তালিম নিয়েছেন। তবে আজ এই পর্যায়ে আসার জন্য তিনি সব সময় তার পিতা আজিজুল হক মোর্শেদ ও স্বামী মইনুল ইসলাম খান—এ দুজনের অবদানকেই অগ্রগণ্য করেন। নারী শ্রেষ্ঠ প্লেব্যাক কন্ঠশিল্পী হিসেবে রুনা লায়লা ও সাবিনা ইয়াসমিনের পরে তিনিই একাধিক তিনবার জাতীয় চলচ্চিত পুরস্কার লাভ করেন।