অক্ষয় কুমারের জন্ম ভারতের পাঞ্জাবে ১৯৬৭ সালের ৯ সেপ্টেম্বর। তার আসল নাম রাজিব ভাটিয়া। তার বাবার নাম হরি ওম ভাটিয়া। তিনি ছিলেন একজন আর্মি অফিসার। বাবার নামেই নিজের প্রডাকশন হাউজের নাম দিয়েছেন অক্ষয়। নব্বই এর দশকে তিনি মূলত অ্যাকশন হিরো হিসেবে পরিচিত ছিলেন। অ্যাকশন হিরো হিসেবে ব্যাপক সাড়া জাগিয়ে ছিলেন বলিউডে। ধীরে ধীরে নানান চরিত্রে অভিনয় করে একজন অভিনেতা হিসেবে নিজেকে প্রমাণ করেছেন তিনি। ২০০২ সালে তিনি শ্রেষ্ঠ খল-নায়ক পুরস্কার পান। তিনি বর্তমানে রম্য চলচ্চিত্রে অভিনয় করে বেশি জনপ্রিয়তা পেয়েছেন। তিনি রাজেশ খান্নার জামাতা হন। জনপ্রিয় এই অভিনেতা আজ (৯ সেপ্টেম্বর) ৫২ বছর বয়সে পা রাখলেন।
আজ জন্মদিনে কোটি কোটি ভক্তের শুভেচ্ছায় ভাসছেন অক্ষয় কুমার। জন্মদিনকে ভক্তদের বিষেশ এক সারপ্রাইজ দিলেন তিনি। কী সেই সারপ্রাইজ? অক্ষয় কুমার জানালেন, এবার যশ রাজ ফিল্মসের ব্যানারে যোদ্ধা রাজা পৃথ্বীরাজ চৌহানের চরিত্রে অভিনয় করতে যাচ্ছে তিনি। ক্যারিয়াবে খুব বেশি ঐতিহাসিক গল্পের ছবিতে অভিনয় করেননি অক্ষয়। তাই অক্ষয়ের ভক্তদের জন্য এটা অবশ্যই বিশেষ চমক। আজ অক্ষয়ের জন্মদিনেই ছবিটির ঘোষণা দিয়েছে প্রযোজনা সংস্থা। ছবিটি পরিচালনা করবেন ডক্টর চন্দ্রপ্রকাশ দ্বিবেদী। পৃথ্বীরাজের চরিত্রে ভরপুর অ্যাকশনও থাকবে। ছবিটিতে পৃথ্বীরাজের স্ত্রী সংযুক্তার ভূমিকায় অভিনয় করার কথা প্রাক্তন মিস ওয়র্ল্ড মানুষী চিল্লরের। অক্ষয় কুমার বলেন, নতুন ছবির ঘোষণাটি আমার কাছে খুবই স্পেশ্যাল। এটা চৌহানের বীরত্ব ও শৌর্যকে মানুষের সামনে নিয়ে আসার এক বিনীত প্রয়াস। ভারতের এমন এক নির্ভিক রাজার চরিত্রে অভিনয়ের সুযোগ পেয়ে ভীষণ খুশি লাগছে। আমাদের সেই সব মানুষের কথা মানুষের সামনে নিয়ে আসা যারা দেশের জন্যে নিজেদের উৎসর্গ করেছিলেন। সত্যি কথা বলতে ছবিটির খবর আমার জন্মদিনে সামনে আসায়, এই দিনটা আরও স্পেশাল হয়ে উঠলো। উল্লেখ্য, মুম্বাইয়ে স্থানান্তর হওয়ার পূর্বে তিনি দিল্লির চাঁদনি চকে থাকতেন। মুম্বাইয়ে তিনি কলিওারাতে থাকতেন, সেখানকার অধিকাংশ মানুষ ছিলো পাঞ্জাবী। তিনি মুম্বাইয়ের ডন বসকো স্কুল এ পড়েন এবং পরে তিনি মুম্বাইয়ের গুরু নানক খালসা কলেজএ পড়াশোনা করেন। কুমারের বোনের নাম আল্কা ভাটিইয়া।