আসন্ন ঢাকা সিটি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ব্যাস্ত সময় পাড় করছেন বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের পদ প্রার্থীরা। বিভিন্ন দল এই নির্বাচনে অংশগ্রহন করছে। আর মাত্র কয়েক দিন বাকী ঢাকা সিটি নির্বাচনের। পদ প্রার্থীরা জনগনের কাছে অনেক ধরনের প্রতিস্রুতি প্রদান করছে। এবং প্রার্থীরা নির্বাচনী ইশতেহার ও প্রদান করেছে জনগনের মাঝে। সমগ্র দেশের জন গনের আলোচনার কেন্দ্র বিন্দুতে রয়েছে ঢাকা সিটি নির্বাচন। ঢাকা বাংলাদেশের রাজধানী। এই ঢাকা সিটি করপোরেশন বর্তমান সময়ে দুই ভাগে বিভক্ত।
বিএনপি শেষ পর্যন্ত ঢাকার দুই সিটির ভোটের মাঠে থাকবে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে দক্ষিণে বিএনপির মেয়র প্রার্থী বলেছেন, হামলা-মামলার পরও আমরা শেষ পর্যন্ত নির্বাচনে আছি। আপনারা সরকারকে প্রশ্ন করুন– হামলা মামলা করে সরকার আমাদের নির্বাচন থেকে সরিয়ে দিতে চাইছে কেন? বুধবার দুপুরে রাজধানীর শাহাজাদপুর বাসস্ট্যান্ডে নির্বাচনী প্রচারে গিয়ে এ কথা বলেন তিনি। ঢাকা সিটি নির্বাচনে বিএনপির বিজয় কেউ ঠেকাতে পারবে না বলে মন্তব্য করেছেন উত্তরে বিএনপির মেয়রপ্রার্থী তাবিথ আউয়াল। তিনি বলেছেন, নির্বাচনে বিজয়ী হতে সব ধরনের প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছি।

ভোটের পরিবেশ ইসিকেই নিশ্চিত করতে হবে মন্তব্য করে তিনি বলেন, আমরা ভোটকেন্দ্রে যাব, আমাদের পোলিং এজেন্ট যাবে এবং প্রার্থীরা যাবে। তবে ভোটের পরিবেশ নির্বাচন কমিশনকে নিশ্চিত করতে হবে। তিনি বলেন, ভোটারদের আমি আহ্বান জানাচ্ছি– আমরা যেকোনো পরিবেশে আমাদের গণসংযোগ যেমন অব্যাহত রেখেছি, সেভাবে আপনারাও ১ ফেব্রুয়ারি কেন্দ্র গিয়ে ভোট দিন। এটি আপনারা দায়িত্ব হিসেবে নেন। নির্বাচনী গণসংযোগে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা হাবিবুর রহমান হাবীব, সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু, প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দীন এ্যানি, কেন্দ্রীয় নেতা আমিনুল হক, নিপুণ রায় চৌধুরী, যুবদল সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাহউদ্দিন টুকু, মহানগর যুবদল নেতা এসএম জাহাঙ্গীর হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, তাবিথ আউয়াল বাংলাদেশের ক্ষমতাসীন এবং প্রথমসারির রাজনৈতিক জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির মনোনয়ন প্রার্থী হয়ে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে অংশগ্রহন করছে। বর্তমান সময়ে বাংলাদেশে এই ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দল সংকটময় পরিবেশের মধ্য রয়েছে। দলের অনেক নেতাকর্মীরা রাজনৈতিক ভাবে বিভিন্ন মামলার স্বীকার হয়ে কারাগারে বন্দী। এবং দলের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া ও দূর্নীতির দ্বায়ে কারাগারে বন্দী। এই জাতীয়তাবাদী বিএনপি দল দলের সংকট নিরসনের জন্য নানা ভাবে চেষ্টা চালিয়া যাচ্ছে দলীয় নেতাকর্মীরা।