আজ দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের তৃতীয় তলায় মিলনায়তনে জাতীয়তাবাদী তাঁতী দলের আয়োজনে,সরকারের সমালোচনা করে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেছেন বর্তমান ২০১৯-২০২০ বাজেট দেশের মানুষের প্রত্যাশা পূরণ করবে না।তারা একদিকে লুট করছে, অন্যদিকে বাজেট দিচ্ছে, দেশ পরিচালনা করছে, পলিসি নির্ধারণ করছে। আজকে সব একীভূত। সত্যিকার অর্থে যারা ভোট চুরি করে তাদের হাতে দেশের সম্পদ নিরাপদ নয়। তাদের দ্বারা সম্পদের সঠিক বন্টন হতে পারেনা।
তিনি বলেন, সত্যিকার অর্থে যারা ভোট চুরি করে তাদের হাতে দেশের সম্পদ নিরাপদ নয়। তাদের দ্বারা সম্পদের সুষম বণ্টন হতে পারে না।

শনিবার (১৫ জুন) দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের তৃতীয় তলায় মিলনায়তনে জাতীয়তাবাদী তাঁতী দলের আয়োজনে ’গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার ও দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া’ শীর্ষক আলোচনা সভার তিনি এসব কথা বলেন।

আমীর খসরু বলেন, আজকে দেশের মানুষ সবচেয়ে বেশি স্পর্শকাতর বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি নিয়ে। তার মুক্তির সাথে সবকিছু জড়িত। তার মুক্তির সাথে জড়িত মানুষ ভোটাধিকার ও নিরাপত্তা ফিরে পাবে কিনা। ন্যায় বিচার পাবে কিনা। আমাদের এক দাবি নিয়ে এগিয়ে যেতে হবে। সেটা হলো খালেদা জিয়ার মুক্তি।

বিএনপির এই নীতিনির্ধারক বলেন, দেশের একটি গোষ্ঠী জনগণকে বাইরে রেখে ক্ষমতা দখল করে একদলীয় স্বৈরশাসন প্রতিষ্ঠা করতে চায়।

তিনি বলেন, আজকে তিউনিশিয়ার উপকূলীয় এলাকায় বাংলাদেশের তরুণ যুবকেরা ভাসছে। কেন জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পালিয়েছে? কেউ কি জবাব দিতে পারবেন? যে দেশে গণতন্ত্র থাকবে না, বাক স্বাধীনতা থাকবে না, সেখানে ন্যায় বিচার হতে পারে না। আমাদেরকে আন্দোলনে নেমে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে।

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি আবুল কালাম আজাদের সভাপতিত্বে সভায় যারা বক্তব্য দেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল মান্নান, সাংগঠনিক সম্পাদক শামা ওবায়েদ, ওলামা দলের আহ্বায়ক শাহ মোহাম্মদ নেছারুল হক, বিএনপির তাঁতী বিষয়ক সম্পাদক ও সাবেক সভাপতি হুমায়ুন ইসলাম খান, যুগ্ম-আহ্বায়ক বাহাউদ্দিন বাহার, ড. কাজী মনিরুজ্জামান মনির প্রমুখ।